আজ : শনিবার ║ ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আজ : শনিবার ║ ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ║৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ║ ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

চট্টগ্রাম নগর ভবন চত্বরে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রফেসর ড.ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন- স্বাধীনতার ৪৮ বছরে দেশের জনগণের কাছে বর্ণচোরা ড.কামালের মুখোশ উম্মোচিত হয়েছে

দেশচিন্তা নিউজ ডেস্ক:

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড.ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী ড. কামাল হোসেনকে বর্ণচোরা আখ্যায়িত করে বলেছেন মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার কথা বলে তিনি স্বাধীনতা বিরোধী ও ঘাতকদের নিয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবিদের সমাধিতে গেছেন ও সাংবাদিকদের তিরস্কার করেছেন, হুমকি দিচ্ছেন এবং তাদের সঙ্গে সন্ত্রাসীর ভাষায় আচরণ করেছেন। তিনি বলেন স্বাধীনতার ৪৮ বছরে বর্ণচোরা ড.কামালের মুখোশ উম্মোচিত হয়েছে দেশের জনগণের কাছে। আওয়ামীলীগের ভিতর থেকে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তি করেছেন। ৪৮ বছরে এসব বর্ণচোররা বিভিন্ন গ্রুপ নিয়েছিল: কিন্তু এবারের নির্বাচণে সব দেশবিরোধী শক্তি বর্ণচোরা ও স্বাধীনতা বিরোধীরা এক হয়েছে। বাংলাদেশের মানুষের কাছে এখন পরিষ্কার, তার ভুমিকা নিয়ে আর কোন সন্দেহ নেই। গতকাল বিকেলে নগর ভবন চত্বরে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা আয়োজিত দু’দিন ব্যাপী বর্ণাঢ্য মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসবের আজ ১৮ ডিসেম্বর সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। ড.কামাল হোসেনের উদ্দেশ্যে ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী আরো বলেন ১৯৭৫ এর পর তিনি কেন বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার চাননি। এখন খালেদা জিয়ার মুক্তি চান। তিনি কাদের লোক এসব আজ পরিষ্কার হয়ে গেছে। ওরা সবাই একই সূত্রে গাঁথা। তিনি বলেন কোন ষড়যন্ত্রই আর কার্যকর হবে না। ৩০ ডিসেম্বর নৌকায় ভোট দিয়ে সব ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিবে বাংলাদেশের সাধারন জনগণ। তিনি আরো বলেন জাতির পিতার ¯েœহ ও ভালবাসা পাওয়া একজন মানুষ কিভাবে আদর্শ বিসর্জন দিয়ে স্বাধীনতা বিরোধী জামাতের সাথে হাত মেলাতে পারেন? আদর্শচ্যুত এমন ব্যক্তিকে দেশের জনগণ কখনো ক্ষমা করবে না। মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীরা যেমন স্বাধীনতাকে কখনই মেনে নিতে পারে নি তেমনি তাদের বংশধররা স্বাধীনতা অস্তিত্ব মানে না। ড. কামাল হোসেনের মত তথাকথিত স্বাধীনতার পক্ষের লোকেরা স্বাধীনতা বিরোধীদের সঙ্গে কেবল ঐক্যই করেন নি তাদের ক্ষমতায় বসাতে দেশী বিদেশীদের সঙ্গে নিয়ে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্তও হয়েছে। প্রধান আলোচকের ভাষনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র ও নগর আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য প্রফেসর ড. নিছার উদ্দিন আহমদ মঞ্জু বলেন আসন্ন সংসদ নির্বাচনে পেট্টোল বোমা ও গ্রেনেড হামলাকারী এবং যুদ্ধাপরাধীদের বর্জণ করুন এবং তাদেরকে ভোট দিয়ে সংসদকে অবমান করবেন না। তাদেরকে ভোট না দেবার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। মুক্তিযুদ্ধ বিজয় উৎসব উদযাপন পরিষদের সভাপতি সদস্য সচিব প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক এর সভাপতিত্বে ও প্রধান সমন্বয়কারী ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার সাধারন সম্পাদক খোরশেদ আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমেদ, সাংবাদিক সুজিত কুমার দাশ, আবৃর্ত্তি সংগঠক রাশেদ হাসান, ছড়াকার ও লেখক আ ফ ম মুদাচ্ছের আলী, নগর ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল বশর প্রমুখ। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা সাইদুর রহমান পুতুল, আকবরশাত থানা আওয়ামলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবু সুফিয়ান, সংস্কৃতি কর্মী নজরুল ইসলাম মুস্তাফিজ,শওকত আলী সেলিম, দিলীপ সেন গুপ্ত, কবি সজল দাশ,মুজিবুর রহমান প্রমূখ। মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসবের আলোচনা সভা শেষে দলীয় নৃত্য পরিবেশন করেন নৃত্যম একাডেমী পরিচালনায় নৃত্য শিল্পী সোমা বোস, একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন বেতার ও টেলিভিশন শিল্পী নুসরাত জাহান রিনি,ইলমে বিনতে বখতেয়ার, নিশা চক্রবর্তী, রিতু বড়–য়া,রুপি চৌধুরী,রিনি সিনহা,একক আবৃত্তর্িী পরিবেশ করেন বাচিক শিল্পী ফারুক হোসেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print

আজকের সর্বশেষ সংবাদ