আজ : শনিবার ║ ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আজ : শনিবার ║ ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ║১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ║ ২১শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

চট্টগ্রামের বিনোদন লেখক নাসির হোসেন জীবন এর লেখালেখির দু’দশক শীর্ষক আলোচনা ও স্কৃতিক অনুষ্ঠান

দেশচিন্তা নিউজ ডেস্ক:

সমাজ বির্নিমানে ও সমাজের উন্নয়নে সংস্কৃতির গুরুত্ব অপরিসীম। সংস্কৃতিকে জাতির সামনে তুলে ধরতে বিনোদন সাংবাদিকদের অবদান ও গুরুত্ব বিশাল। দীর্ঘ প্রায় দু’দশক ধরে সংস্কৃতিকে ও সংস্কৃতি ব্যত্তিত্বদের জাতির সামনে তুলে ধরেছেন আজকের এই তরুন বিনোদন লেখক নাসির হোসাইন জীবন। এই অনুষ্ঠানে না আসলে আমি তার সম্বন্ধে জানতে পারতাম না। তার দীর্ঘ কর্মময় জীবনের কিছুটা চিত্র ফুলে উঠেছে তাকে নিয়ে নির্মিত ডকুমেন্টরীতে। এত অল্প বয়সের একটা যুবক এত বড় বড় গুরুত্বপূর্ন নিউজ ও ফিচার তৈরী করেছেন যা অবিরল। এই বয়সের যুবকরা যেখানে বিপথে পা বাড়াচ্ছেন সেখানে নাসির হোসাইন জীবন সংস্কৃতিকে ভালোবেসে সংস্কৃতিকে আকড়ে ধরে আছেন নিঃসন্দেহে তাকে সাধুবাদ জানাই। সে বয়সে তরুন তাই তার সামনে অনেক ভবিষ্যৎ পড়ে আছে। আমি তাকে বলতে চাই তুমি এগিয়ে যাও চলার পথে অনেক বাধা, বিপত্তি আসবে সেগুলোকে পাশ কাটিয়ে এগিয়ে যাও সফল হবেই। নিরাশ না হয়ে তোমার কমিটমেন্ট নিয়ে সংস্কৃতিতে গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখবে সেটা প্রত্যাশা করি। তাছাড়া সংস্কৃতিতে তার কর্মকান্ড প্রশংসার দাবিদার। তার সম্পাদনায় বিনোদন ম্যাগাজিন পত্রিকা “বিনোদনের রঙ” আমি দেখেছি খুবই চমৎকার ও পরিছন্ন। আমি বিমুহিত ও আপ্লুত তার এইসব দায়িত্বপূর্ন কর্মকান্ড দেখে। আমি তার উত্তেরোত্তর উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করছি।

৪ অষ্টোবর বৃহস্পতিবার জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে নাসির হোসাইন জীবন এর লেখালেখির দু’দশক শীর্ষক আলোচনা ও সংস্কৃতিক অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা গুলো বলেন- অনুপম সেন (মাননীয় উপাচার্য্-প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়)। প্রধান আলোচক শুকলাল দাশ (সাধারণ সম্পাদক-চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব), উদ্বোধক লায়ন কাজী নাদিরুজ্জামান (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী), অতিথি আলোচক এজাজ ইউছুফী (ফিচার সম্পাদক, দৈনিক পূর্বকোন) কামরুল হাসান বাদল (সহযোগী সম্পাদক, দৈনিক সুপ্রভাত বাংলাদেশ), দেবদুলান ভৌমিক (সহকারী সম্পাদক, দৈনিক পূর্বদেশ), সাইফুল আলম বাবু (সাধারন সম্পাদক, জেলা শিল্পকলা একাডেমী কার্যকরি কমিটি), সরোয়ার আমিন বাবু (ব্যুারো প্রধান, আর টিভি), ফজল আহমদ (সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও ব্যাংকার), নুরুল ইসলাম নুরু (মিডিয়া ব্যক্তিত্ব), বিশেষ অতিথি- লায়ন এম, এ মুছা বাবলু এম জে এফ (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও উপদেষ্টা-বিনোদনের রঙ), মো: জসিম উদ্দিন (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও উপদেষ্টা বিনোদনের রঙ), আলহাজ্ব সফর আলী (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক), হাজী মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও উপদেষ্টা বিনোদনের রঙ), মো: জহিরুল ইসলাম সুজন (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও উপদেষ্টা বিনোদনের রঙ), ইঞ্জিনিয়ার জাবেদ আবসার চৌধুরী (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও উপদেষ্টা বিনোদনের রঙ), সজল চৌধুরী (বিশিষ্ট কলামিষ্ট, লেখক, নাট্যজন ও উপদেষ্টা বিনোদনের রঙ)।

সাংবাদিক আলী আহমেদ শাহীন এর সভাপতিত্বে স্বনামধন্য আবৃত্তি শিল্পি দিলরুবা খানমের সঞ্চলনায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্যে উদ্বোধক লায়ন কাজী নাদিরুজ্জামান বলেন- লেখালেখির দ’দশক শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের উদ্বোধক হতে পেরে আমি আনন্দিত। আজকের এই তরুন বিনোদন সাংবাদিক নাসির হোসাইন জীবন দু’দশক ধরে সংস্কৃতিতে গুরুত্বপূর্ন অবদান রেখেছে। তাকে স্বীকৃতি দিতে “বিনোদনের রঙ” পরিবার আয়োজিত উক্ত অনুষ্ঠানে এসে এই তরুন লেখককে উৎসাহিত করতে পেরে আমি গর্বিত। তার দীর্ঘ কর্মময় জীবন সম্বন্ধে জানতে পেরে আমি আরো উচ্চসিত। এত অল্প বয়সে সে সংস্কৃতিতে অনেক কিছুই দিয়েছেন আজ তাকে দেওয়ার পালা। আমি তাকে সাধুবাদ জানাই সে অনেক দূর এগিয়ে যাবে এই প্রত্যাশা রাখতে পারি। তুমি তোমার কর্ম নিয়ে এগিয়ে যাও তোমার পাশে আমরা আছি এব ং থাকব। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ইঞ্জিনিয়ার জাবেদ আবসার চৌধুরী, আলহাজ্ব সফর আলী, সাংবাদিক সজল চৌধুরী নাসির হোসাইন জীবন এর দীর্ঘ কর্মময় জীবনের প্রশংসা করেন। নাসির হোসাইন জীবন তার অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন-প্রথমে ধন্যবাদ জানাই মহান র্সষ্টিকর্তাকে, আমাকে সংস্কৃতিতে যুক্ত হওয়ার জন্য। যার সহযোগিতা কৃতজ্ঞ চিত্রে স্মরণ করছি বিনোদন সাংবাদিক প্রয়াত জুটন চৌধুরীকে। তার পাশাপাশি কৃতজ্ঞ দৈনিক আজাদীর বার্তা সম্পাদক একে এম জহিরুল ইসলাম এর কাছে যিনি আমাকে সুযোগ করে না দিলে আজ আমি নাসির হোসাইন জীবন হয়ে উঠতে পারতাম না।

আরো ধন্যবাদ আজকের অনুষ্ঠান যাদের সহযোগীতায় সেই বিনোনের রঙ পরিবারকে। বিশেষ করে আলী আহমেদ শাহিন, লায়ন এম এ মুছা বাবলু, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, রুজি চৌধুরী ও “বিনোদনের রঙ” এর উপদেষ্টা পরিষদকে। আজকের অনুষ্ঠানকে আলোকিত করেছেন ড. অনুপম সেন স্যার আমি তার কাছে কৃতজ্ঞ, কারন আমার মতো ক্ষুদ্র একজন লেখককে উৎসাহিত করতে তাহার মূল্যবান সময় দেওয়ার জন্য। আরো ধন্যবাদ জানাই অনুষ্ঠান সফল করার জন্য যিনি সহযোগিতা করেছেন আজকের এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধক লায়ন কাজী নাদিরুজ্জামান। সাংবাদিক, লেখক, সাংস্কৃতিক কর্মী, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ও উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ আপনাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করে আমাকে উৎসাহিত করার জন্য। আগামিতে সংস্কৃতিতে উলে-খযোগ্য ভূমিকা রাখতে পারি আমার জন্য দোয়া করবেন।

সভাপতির বক্তব্যে সাংবাদিক আলী আহমেদ শাহিন বলেন বিনোদন সাংবাদিক নাসির উদ্দিন জীবন এর সাথে আমার পরিচয় বেশী দিনের নয় কিন্তু এই অল্প সময়ে তার সাথে মিশে উপলদ্ধি করছি যে সংস্কৃতিতে ভূমিকা রাখতে তার যে কর্মস্পৃহা তা দেখে আমি অভিভূত। আমি তার সম্পাদনায় “বিনোদনের রঙ” এর সাথে যুক্ত হতে পেরে গর্বিত। তার সাহসী পদক্ষেপ সুচিন্তিত মেধা ও মননে “বিনোদনের রঙ” একদিন চট্টগ্রাম এর সেরা বিনোদন পত্রিকা হিসাবে অবস্থান করবে সেটা প্রত্যাশা করতে পারি। আমার সহযোগীতা সব সময় পাবেন আপনি এগিয়ে যান আপনার উত্তোরোত্তর সাফল্য ও সুন্দর জীবন কামনা করছি। লেখককে উৎসাহিত করে অনুভুতি ব্যক্ত করে গীতিকার ফারুক হাসান, ছড়াকার ও কবি তালুকদার হালিম, সংগঠক শাওন পান্থ, কবি আরিফ চৌধুরী, ছড়াকার রমজান আলী মামুন, সংগঠক জসীম উদ্দীন চৌধুরী, নারী নেত্রী শাহানা আক্তার, সংগঠক সজল দাশ সহ অনেকেই। এরপর লেখক নাসির হোসাইন জীবনকে লেখালেখি ও সংস্কৃতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য “বিনোদনের রঙ পরিবার সম্মাননা ২০১৮” প্রদান করা হয়। আলোচনা সভার পর অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আবৃত্তি পরিবেশন করেন শব্দ নোঙর আবৃত্তি সংগঠন এর আবৃত্তি শিল্পীরা নির্দেশনায় স্বনামধন্য আবৃত্তি শিল্পী দিলরুবা খানম। নৃত্য পরিবেশন করেন নিক্কন একাডেমীর নৃত্য শিল্পীরা। নৃত্য পরিচালনায় সেতু বিশ্বাস। সংগীত পরিবেশন করেন এই প্রজন্মের শিল্পীদ্বয়। সঙ্গীত শিল্পী সাংবাদিক নাসির হোসাইন জীবন, শাহিন রহমান, নীহা, মাসুদ ও সমিরন পালের মনোমুগ্ধ পরিবেশনা উপস্থিত সকলকে মুগ্ধ করে। যন্ত্র সঙ্গীতে ছিলেন স্বরলিপি মিউজিশিয়ান টিম। কারিগরি সহযোগীতায় স্ক্রীন ভিশন ও ল্যান্স প্লস। ডকুমেন্টরী নির্মান করেন চট্টগ্রামের স্বনামধন্য নির্মাতা মিডিয়া ব্যক্তিত্ব নুরুল ইসলাম নুরু। নাসির হোসাইন জীবন এর লেখালেখির দু’দশক শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি সবার মনে গেথেঁ থাকবে।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print

আজকের সর্বশেষ সংবাদ