আজ : বুধবার ║ ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আজ : বুধবার ║ ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ║৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ║ ১৩ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সিআইপি হলেন মিরসরাইয়ের দুই প্রবাসী

এস এম জাকারিয়া, মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : বাংলাদেশে বৈধ চ্যানেলে সর্বাধিক বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী অভিবাসী বাংলাদেশি ক্যাটাগরিতে ২০২৩ সালের জন্য নির্বাচিত বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নির্বাচিত হয়েছেন ৫৯ জন। তন্মধ্যে ২৬ জন সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসী। এ ছাড়া বিদেশে বাংলাদেশি পণ্যের আমদানিকারক অভিবাসী বাংলাদেশি ক্যাটাগরিতে ২০২৩ সালের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন আরো তিনজন আমিরাত প্রবাসী।

 

বৈধ পথে সর্বাধিক রেমিট্যান্স প্রেরণকারী ক্যাটাগরিতে আমিরাত প্রবাসীদের মধ্যে মীরসরাইয়ের রয়েছেন দুই জন। একজন আল আইন প্রবাসী মোহাম্মদ ইউসুফ শরিফ টিপু। অন্যজন দুবাই প্রবাসী মোহাম্মদ জিয়া উদ্দীন।

 

দেশের জাতীয় অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) নির্বাচিত মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন সংযুক্ত আরব আমিরাতে জেড এন্ড এস গ্রুপের চেয়ারম্যান ও গোল্ডেন ভিসাপ্রাপ্ত তরুণ উদ্যোক্তা।

 

২০ ডিসেম্বর, বুধবার গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিনের নাম ঘোষণা করেন। জেড এন্ড এস গ্রুপের চেয়ারম্যান ও গোল্ডেন ভিসাপ্রাপ্ত তরুণ উদ্যোক্তা মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন ব্যবসায়ীক ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ স্বীকৃতি সিআইপির মর্যাদা পাওয়ায় মিরসরাইবাসীসহ বাঙালী কমিউনিটির বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ অভিনন্দন জানান। মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন সিআইপি মিরসরাই উপজেলার ৫ নং ওচমানপুর ইউনিয়নের রোকন্দিপুর গ্রামের মোহাম্মদ আবদুল হাই ও ফাতেমা বেগমের সন্তান।

 

উল্লেখ্য, দুই বছরের জন্য নির্বাচিত সিআইপিদের সুবিধাগুলোর মধ্যে রয়েছে – সরকারের দেওয়া পরিচয়পত্র দিয়ে সচিবালয়ে প্রবেশ, সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সরকারী বিভিন্ন নীতিনির্ধারণী কমিটিতে সদস্য হওয়ার যোগ্যতা, দেশে-বিদেশে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে অগ্রাধিকার, জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিবসগুলোতে বিদেশে বাংলাদেশ মিশনের অনুষ্ঠানে অতিথি এবং বাংলাদেশে উপস্থিত থাকলে বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠান এবং সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নাগরিক সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ পাবেন।

 

এছাড়াও সিআইপিরা বিমান, রেল, সড়ক ও জলযানে আসন সংরক্ষণে অগ্রাধিকার পাবেন। বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ ও স্পেশাল হ্যান্ডলিংয়ের সুবিধা পাবেন। সিআইপিদের স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে ও নিজের চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালে কেবিন সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন। প্রবাসী সিআইপিরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মতোই সুযোগ-সুবিধাও পাবেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print

আজকের সর্বশেষ সংবাদ