আজ : শনিবার ║ ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আজ : শনিবার ║ ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ║১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ║ ২১শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

বন্যার পানি চলে গেলেও আমিলাইশ ইউনিয়ন শিশু কিশোর আসর ক্ষতিগ্রস্তদের ছেড়ে যায়নি

আমিলাইশ ইউনিয়ন শিশু কিশোর আসরের সকল নেতৃবৃন্দ বলেছেন, “বন্যাসহ সকল বিপদ-মুছিবত মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে আসে। কোন বিপদই স্থায়ী থাকেনা। আল্লাহ তা’য়ালার পরীক্ষা শেষ হলে বিপদও কেটে যায়। সাম্প্রতিক কালের ভয়াবহ বন্যার শুরু থেকে সাতকানিয়া আমিলাইশ ইউনিয়নের সর্ববৃহৎ সামাজিক সংগঠন, গণমানুষের প্রিয় ঠিকানা, আমিলাইশ ইউনিয়ন শিশু কিশোর আসর বন্যার্তদের পাশে সাধ্যমত সহযোগিতা নিয়ে দাঁড়িয়েছিল। সেই সময়ে বিবেকের তাড়নায় অনেকেই বন্যাদূর্গত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। যারা বিপদগ্রস্ত বন্যার্তদের পাশে দাঁড়িয়েছেন সবাইকে আন্তরিক মোবারকবাদ। আশা করি মহান আল্লাহ তাদেরকে উত্তম জাযা দান করবেন। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, বন্যার পানি চলে গেলে আমাদের বিত্তবান-সামর্থবান ভাইয়েরাও চলে গেছেন।কিন্তু আমিলাইশ ইউনিয়ন শিশু কিশোর আসর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ছেড়ে যায়নি। সাধ্যের সবটুকু নিয়ে আমরা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে এখনও আছি। আমরা শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম চালাচ্ছি। আমরা খুঁজে খুঁজে মানুষকে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য সর্বোচ্চ ভূমিকা পালন করতেছি । আমরা খুজে-খুঁজে ১০ হাজার টাকা দিয়ে হলেও একজন অসহায় ভাইকে স্বাবলম্বী করে তোলার কাজ অব্যাহত রাখবো, ইনশাআল্লাহ। এজন্য আমরা আপনাদের ভালোবাসা ও দো’য়া চাই। আমিলাইশ ইউনিয়ন শিশু কিশোর আসরের নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, বন্যা চলাকালিন সময়ে আমরা আমাদের নেতা-কর্মীদের কাছে সাধ্যমতো সহযোগিতা চেয়েছিলাম। আলহামদুলিল্লাহ আমাদের ভাইয়েরা প্রত্যাশার চেয়ে ১০ গুণ বেশী সহযোগিতা করেছেন। কারণ আমাদের একমাত্র লক্ষ্য মানুষের কল্যাণ সাধন করে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন। যারা আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের সন্তুষ্টির জন্য কাজ করে তাদেরকে আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামীন হেফাজত করবেন, ইনশাআল্লাহ। খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন,রফিকুল ইসলাম,মোজাম্মেল হক চৌধুরী, রহমত উল্লাহ,সাজ্জাদ হোসেন, মিনহাজ,রাসেল,সহ সংগঠনের সদস্যবৃন্ধ।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print

আজকের সর্বশেষ সংবাদ