আজ : শনিবার ║ ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আজ : শনিবার ║ ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ║১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ║ ২১শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

জিম্বাবুকে ২৮ রানে হারিয়ে জিতলেন মাশরাফি বাহিনী

ক্রীড়া প্রতিবেদক:
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমটি সহজভাবেই জিতলো বাংলাদেশ। সফরকারী দলকে ২৮ রানে হারায় মাশরাফি বাহিনী।ইমরুল কায়েসের দারুণ সেঞ্চুরি ও বোলারদের সম্মিলিত পারফরম্যান্সের ওপর সম্পূর্ণ নির্ভর করেছেে। বাংলাদেশ প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান করেছে। এর জবাবে পুরো ওভার খেললেও ৯ উইকেট হারিয়ে ২৪৩ রানের বেশি করতে পারেনি জিম্বাবুয়ের দল।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল জিম্বাবুয়ে। মাশরাফি-মিরাজের প্রথম স্পেলে সফলতা পায় তারা। হ্যামিল্টন মাসাজাদজা ও চিপহাস জুহওয়াও ওপেনিংয়ে ৪৮ রানের জুটি গড়েন। তবে দলীয় অষ্টম ওভারে মোস্তাফিজুর রহমান এসেই বাজিমাত শুরু করে দেন। চিপহাস জুহওয়াওকে ব্যাট-প্যাডের ফাঁক গলিয়ে বোল্ড করেন তিনি। ২৪ বলে ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় ৩৫ করে ভয়ংকর হয়ে ওঠা এই বাঁহাতিকে মাঠ ছাড়া করান।

স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুর দলীয় ১১ ও নিজের দ্বিতীয় ওভারে নতুন ব্যাটসম্যান ব্র্যান্ডন টেইলরকে সরাসরি বোল্ড করেন । দারুণ এক রান আউট করে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে ফেরান মুশফিকুর রহিম। এর ফলে তৃতীয় উইকেটের পতন হয় জিম্বাবুয়ের। ১৩তম ওভারের দ্বিতীয় বলে পুশ করে মাসাকাদজা দুই রান নিতে গেলে কায়েসের লম্বা থ্রো থেকে বল নিয়ে ডাইভ দিয়ে স্ট্যাম্প ভেঙে দেন মুশফিক। সফরকারী দলনেতা ৩৪ বলে ২১ রান করে আর মাঠে থাকতে পারে নাই ।

এরপর জিম্বাবুয়ের ভরসা ব্যাটসম্যান সিকান্দার রাজাকে সরাসরি বোল্ড করে মাঠ ছাড়া করেন নাজমুল ইসলাম অপু্। ২১তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ৮৮ রানে অপুর দ্বিতীয় শিকার হয়ে সফরকারীদের চতুর্থ উইকেটে ফেরেন রাজার পতন হয়। দলীয় ১০০ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে জিম্বাবুয়ে। আর প্রতিপক্ষের এই পাঁচ উইকেটের চারটি-ই বোল্ড করে বাংলাদেশ। ক্রেইগ আরভিনকে ব্যক্তিগত ২৪ রানে বোল্ড করেন মেহেদি হাসান মিরাজ।

নিজের দ্বিতীয় শিকারে সেট হতে থাকা জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান পিটার মুরকে ফেরান মেহেদি হাসান মিরাজ। ৪৫ বলে ২৬ রান করা এই ব্যাটসম্যানকে এলবির ফাঁদে ফেলেন এই ডানহাতি। পরে নতুন ব্যাটসম্যান ডোনাল্ড ট্রিপানোকে সরাসরি থ্রো করে রান আউট করেন অভিষিক্ত ফজলে রাব্বি। ১৬ বলে ঝড়ো ২০ রান করা ব্র্যান্ডন মাভুতাকে অসাধারণ এক কট এন্ড বোল্ড করে ফিরিয়ে নিজের তৃতীয় উইকেট তুলে নেন তিনি। এর ফলে ৮ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। ৪৯.৪ ওভারে ৩৩ বলে ৩টি চার ও দুটি ছক্কায় ৩৭ করা কাইল জারভিসকে বিদায় করেন মাহমুদউল্লাহ। জিম্বাবুয়ে ব্যাটসম্যান শেন উইলিয়ামস ৫০ রানে অপরাজিত থাকেন। এর পূর্বে ৮ মাসের বেশি সময় পর নিজেদের মাটিতে খেলতে নামে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় দুপুর আড়াইটায় মিরপুরে শের ই বাংলায় টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

ব্যাটিংয়ে নেমে স্লথ গতিতে ব্যাট করতে থাকা লিটন দাশ তুলে মারতে গিয়েই বিদায় নেন। দলীয় পঞ্চম ওভারের শেষ বলে ডোনাল্ড ট্রিপানোকে হিট করলেও তা যথেষ্ট হয়নি। তেন্তাই চাতারার ক্যাচে মাঠ ছাড়েন। ১৪ বলে মাত্র ৪ রান করেন এই ওপেনার। পরের ওভার করতে আসা চাতারার বলে উইকেটরক্ষক ব্র্যান্ডন টেইলরকে শূন্য রানে ক্যাচ দেন অভিষেক ওয়ানডে খেলতে নামা ফজলে রাব্বি।

১৫তম ওভারের শেষ বলে ব্র্যান্ডন মাভুতার স্পিনে ধরা পড়েন মুশফিকুর রহিম। উইকেটের পেছনে থাকা ব্র্যান্ডন ম্যাককালামকে ব্যক্তিগত ১৫ রানে ক্যাচ দেন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে দলের বিপর্যয়ে হাল ধরেন এই ওপেনার। পরে ২৩তম ওভারে ব্র্যান্ডন মাভুতার বলে ইমরুল ছক্কা হাকালে দলীয় সেঞ্চুরির দেখা পায় বাংলাদেশ।

দলের বিপর্যয় সামলে ইমরুল কায়েসের সঙ্গে ৭১ রানের জুটি গড়েন মোহাম্মদ মিঠুন। তবে ব্যক্তিগত ৩৭ রানে কাইল জারভিসের বলে উইকেটরক্ষক ব্র্যান্ডন টেইলরকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মিঠুন। ৪০ বলে একটি চার ও তিনটি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান ফর্মে থাকা এই ডানহাতি। কিন্তু নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে এসেই সেই জারভিসের ওভারেই আউট ব্যক্তিগত শূন্য রানে আউট হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ডানহাতি এ ফাস্ট বোলারের পরের ওভারে উইকেট বিলিয়ে দেন অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মিরাজ। নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে তৃতীয় সেঞ্চুরির দেখা পান ইমরুল কায়েস। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে দলের বিপর্যয়ে একাই হাল ধরে ব্যাটিং করা এই ওপেনার ১১৮ বলে ৮টি চার ও ৩টি ছক্কায় তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছান। পরে ৪৮.৪ ওভারে জারভিসের চতুর্থ শিকার হয়ে ফেরেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ১৪০ বলে ১৩টি চার ও ৬টি ছক্কায় ১৪৪ রানে বিদায়ে নেন এই বাঁহাতি।

ইমরুলের বিদায়ের পর ক্যারিয়ারের প্রথম হাফসেঞ্চুরির দেখা পাওয়া সাইফউদ্দিনও মাঠ ছাড়েন। ৬৯ বলে ৩টি চার ও এক ছক্কায় ঠিক ৫০ করে তিনি চাতারার তৃতীয় শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নমুখী হন। সপ্তম উইকেট জুটিতে এদিন সাইফউদ্দিনের সঙ্গে রেকর্ড ১২৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন ইমরুল। এ ম্যাচে ফজলে রাব্বি হয় বাংলাদেশ দলের বড় শক্তি সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে অভিষেক । স্কোয়াডে ডাক পাওয়ার পর থেকেই তার একাদশে আসার জোর গুঞ্জন শোনা যায়।

বাংলাদেশের ৩০ বছর বয়সী রাব্বি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ১২৯তম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক হলো ।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print

আজকের সর্বশেষ সংবাদ